1. Saifuddin8600@gmail.com : S.M Saifuddin Salehi : S.M Saifuddin Salehi
  2. Journalistmmhsarkar24@gmail.com : Md: Mahidul Hassan Mahi : Md: Mahidul Hassan Mahi
  3. rajuahamad717@gmail.com : Md Raju Ahamed : Md Raju Ahamed
  4. rakibulpress51@gmail.com : Rakibul Hasan : Rakibul Hasan
  5. rajruhul@gmail.com : মোঃ রুহুল আমীন : মোঃ রুহুল আমীন
  6. prosajjad@gmail.com : Sazedur Rahman Sajjad : Sazedur Rahman Sajjad
  7. shorifulshorif01@gmail.com : Md shoriful Islam Shorif : Md shoriful Islam Shorif
  8. dailyatrai@gmail.com : Md Rasel Kobir : Md Rasel Kobir
শনিবার, ১৫ মে ২০২১, ০৮:০৪ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
গ্রামবাসীর ব্যাতিক্রম ঈদ উদযাপন বিলুপ্ত প্রায় গ্রামীণ খেলাধুলার আয়োজন শিক্ষানবীস আইনজীবিকে কুপিয়ে জখম দেশবাসীকে পবিত্র ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন সাংবাদিক মাহিদুল হাসান মাহি! হিল কিনে না দেওয়ায় গলায় ফাঁস দিয়ে কিশোরীর আত্মহত্যা সাংবাদিকরা সমাজের দর্পণ…………এমপি হেলাল অসহায় আসলামের পাশে দাড়ালেন আহম্মদ আলী মোল্লা ঢাকা বিশ্ব বিদ্যালয়ের ৩য় বর্ষের শিক্ষর্থী সাব্বির সরকার এর ঈদ সামগ্রী বিতরন নাটোরে ৩‌১টি শ্রমিক সংগঠনের মাঝে খাদ্য সহায়তা প্রদান ঈদের আগে ঈদ আনন্দে পথশিশুরা,পেল নতুন পিরান রাণীনগরে আনন্দ ভাগাভাগি করতে সিএনজি শ্রমিকদের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ
add

প্রসংগ: আওয়ামী লীগের সংবিধান, প্রচলিত নিয়ম এবং বহি:স্কার আদেশ!!

রির্পোটারের নাম:
  • প্রকাশের সময় : বুধবার, ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ২১৯ বার পড়া হয়েছে

মকবুল হোসেন তালুকদার*শহীদ শেখ ফজলুল হক মনি একজন সফল রাজনীতিবিদ, মুক্তি যুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, মুজিব বাহিনীর প্রধান,দৈনিক বাংলার বাণী পএিকার প্রতিষ্ঠাতা এবং আওয়ামী যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান।১৯৬০-১৯৬৩ সালে তিনি ছিলেন ছাএলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারন সম্পাদক।এ ছাড়া তিনি ছিলেন শোষক পাকিস্তান সরকারবিরোধী প্রতিটি আন্দোলন সংগ্রামের একজন অকুতভয় যুবনেতা। তিনি বঙ্গবন্ধুর নিত্য সহচর হিসাবে অসংখ্যবার কারা বরন করেছেন।শহীদ শেখ মনি ভাই ছিলেন বঙ্গবন্ধুর আপন ভাগ্নে ও অত্যন্ত বিশ্বস্ত একজন রাজনৈতিক কর্মী।তাইতো খুনি চক্র সর্ব প্রথম মনি ভাইকে হত্যা করে এবং পরে বঙ্গবন্ধুসহ বংগবন্ধুর পরিবারের সকল সদস্যদেরকে হত্যা করে। ঘাতকরা জানতো বংগবন্ধুকে রক্ষা করতে সর্ব প্রথম শেখ মনি এগিয়ে আসবে। তাই ১৫ আগষ্ট’৭৫ ঘাতকদের প্রথম টার্গেট ছিলো শেখ ফজলুল হক মনি।

কিন্তু বিগত ১৫ আগষ্ট’২০ জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে বংগবন্ধুর হত্যা পরবর্তী বাংলাদেশের রাজনীতি ও আজকের বাংলাদেশ শীর্ষক এক ভার্চ্যুয়াল আলোচনা সভার উপস্হাপক প্রকৌশলী মোহাম্মদ আলী সিদ্দিক অসাবধানত বশত: বা শ্লিপ অব টাঙ বা অনিচ্ছাকৃত ভাবে “৭৫ এর ১৫ আগষ্টের বিয়োগান্তক ঘটনার প্রক্ষাপট তুলে ধরতে গিয়ে ত্রুটিপুর্ন ভাবে বলে ফেলেন “শুনেছি বিশ্বাস ঘাতক খুনী মোস্তাক বংগবন্ধুর ভাগ্নে শেখ মনির সাথে ঘনিষ্ট হয়ে বংগবন্ধুকে একা করে ফেলেছিলেন”।তবে তিনি জাতীয় বেইমান বিশ্বাস ঘাতক খুনি মোস্তাকের নামের সাথে শহীদ শেখ মনি ভাইয়ের নাম উচ্চারন না করাই শ্রেয় ছিল। তাই ঘটনার অব্যহতি পরই প্রকৌশলী সিদ্দিক মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক জননেতা শহীদ শেখ ফজলুল হক মনি ভাইকে নিয়ে তার ঐ বক্তব্যটি যথাযথ হয়নি বুঝতে পেরে মিডিয়ার মাধ্যমে ঐ দিনের বক্তব্যকে নিতান্তই অসাবধানতা বশত হয়েছে বিধায় তাঁর এই অনইচ্ছাকৃত ত্রুটির জন্যে তিনি মিডিয়ার মাধ্যমে আন্তরিকভাবে দু:খ প্রকাশ ও ক্ষমা প্রার্থনা করেছেন। প্রসংগত উল্লেখ্য যে, উক্ত সভায় বাংলাদেশ থেকে সাবেক মন্ত্রী জননেতা শাহজাহান খাঁন, প্রফেসর এ্যামিরেটাস অধ্যাপক মো: আফজাল হোসেন, অধ্যাপক ড. আব্দুস সামাদ, প্রো- ভাইস চেন্সেলর, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, কৃষিবিদ মো: খায়রুল আলম প্রিন্স, মহাসচিব, কৃষিবিদ ইন্সটিটিউশন, বাংলাদেশ ও জনাব মোহাম্মদ শামীম চৌধুরী, সাবেক সাধারন সম্পাদক, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ অংশ গ্রহন করেন। উপস্হাপক প্রকৌশলী মোহাম্মদ আলী সিদ্দিকের শব্দ চয়নে কোথাও জননেতা শহীদ শেখ মনি ভাইকে নিয়ে কোন অশোভন বাক্য উচ্চারন করেন নি। তিনি বরন্চ জাতির জনকের জীবিত কন্যা জননেএী শেখ হাসিনা এবং শেখ রেহানা’র নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। কিন্তু পরিতাপের বিষয় হলো মহান মুক্তি যুদ্ধের একজন সহযোগি যোদ্ধা এবং গাজীপুরস্হ ঢাকা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাএ লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি হিসাবে খুনী জিয়া ও স্বৈরাচার এরশাদের বিরুদ্ধে রাজপথের একজন লড়াকু সৈনিক প্রকৌশলী মোহাম্মদ আলী সিদ্দিকের অসাবধনতা বশত: একটি শব্দকে টুইষ্ট করে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের বিলুপ্ত কমিটি তাঁকে বহিস্কার করায় স্হানীয় নেতা কর্মীগন বিস্মিত হয়েছেন। তাছাড়া, প্রকৌশলী সিদ্দিকের বহিস্কার আদেশে যে ধারাটি উল্লেখ করা হয়েছে সে ধারা মতে কাউকে বহিস্কার করতে হলে প্রথমে অভিযুক্তকে নির্ধারিত সময় দিয়ে কৈফিয়ত তলব করতে হয়; অভিযুক্তের জবাব প্রাপ্তির পর স্হানীয় কমিটির সভায় সংখ্যাগরিষ্ট সদস্যের সমর্থনে অভিযুক্তের জবাব সন্তোষ জনক বিবেচিত না হলে স্হানীয় কমিটি সুপারিশ সহ পরবর্তী ব্যবস্হা গ্রহনের জন্য কেন্দ্রীয় কমিটির নিকট প্রেরন করবেন; অত:পর কেন্দ্রিয় কমিটি অভিযুক্তের বিষয়ে সিদ্ধান্ত প্রদান করলে স্হানীয় কমিটি অভিযুক্তের বিয়য়ে সিদ্ধান্তের নোটিশ জারী করবেন। কিন্তু স্হানীয় কমিটি উপরিউক্ত কোন পদ্ধতি অনুস্বরন না করে অভিযুক্ত প্রকৌশলী মোহাম্মদ আলী সিদ্দিককে শুধু মাএ বর্নিত ধারার সংখ্যাটি উল্লেখ করে বহিস্কার আদেশ জারী করেছেন, যা অসাংবিধানিক এবং মৌলিক অধিকারের পরিপন্থি। অধিকন্তু আওয়ামী লীগের সংবিধান ও প্রচলিত নিয়মানুযায়ী কেন্দ্রিয় কমিটির সভাপতি কিম্বা তাঁর কোন প্রতিনিধি অধিনস্হ কমিটির কোন সভায় সভাপতিত্ব করার অর্থ ঐ অধিনস্হ কমিটির কোন অস্তিত্ব থাকেনা বা ঐ কমিটি স্বয়ংক্রিয় ভাবে বিলুপ্ত হয়ে যায়। সংগত কারনেই ২০১৯ সালে মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর গনসম্বর্ধনা সভায় ড. সিদ্দিকুর রহমানকে সভাপতিত্ব করতে না দিয়ে দলীয় সভাপতি জননেএী শেখ হাসিনা নিজেই উক্ত সভায় সভাপতিত্ব করার ফলে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ কমিটি বিলুপ্ত বলে ধরে নিতে হবে। তাই ড. সিদ্দিকুর রহমানের বিলুপ্ত কমিটি প্রকৌশলী মোহাম্মদ আলী সিদ্দিক কে বহিস্কারের কোন এখতিয়ার রাখে না। *লেখক: মুক্তিযোদ্ধা ও কৃষিবিদ স্নিউইয়র্ক,আমেরিক। দৈনিক আত্রাই/এস এস

add

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই জাতীয় আরও খবর...
add
add

Prayer Time Table

  • ফজর
  • যোহর
  • আছর
  • মাগরিব
  • এশা
  • সূর্যোদয়
  • ৪:০১
  • ১২:০৪
  • ৪:৩৮
  • ৬:৪৩
  • ৮:০৬
  • ৫:২২
© স্বর্বস্বত্ব সংরক্ষিত /দৈনিক আত্রাই এই ওয়েবসাইটের লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।
কারিগরি সহযোগিতায়: মোস্তাকিম জনি